উচ্চ রক্তচাপের কারণ ও ঝুঁকি
Health & Wellness

উচ্চ রক্তচাপের কারণ ও ঝুঁকি – যে সকল কারণে হাই প্রেসার হতে পারে

উচ্চ রক্তচাপ, যা হাইপারটেনশন নামেও পরিচিত, হলো একটি দীর্ঘস্থায়ী অবস্থা যাতে রক্ত ধমনীতে রক্তের চাপ বেশি থাকে। রক্তচাপ হলো হৃৎপিণ্ড থেকে শরীরের অন্যান্য অংশে রক্ত প্রবাহিত হওয়ার সময় ধমনীতে সৃষ্ট চাপ। স্বাভাবিক রক্তচাপ 120/80 মিমি পারদ (মিমি Hg) এর নিচে

উচ্চ রক্তচাপের কোনো লক্ষণ নেই, তাই এটিকে “নীরব ঘাতক” বলা হয়। যদি উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা না হয়, তাহলে এটি হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, হৃদরোগ, কিডনি রোগ, এবং অন্যান্য গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

উচ্চ রক্তচাপের অনেক কারণ রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে:

  • পারিবারিক ইতিহাস: উচ্চ রক্তচাপের পারিবারিক ইতিহাস থাকলে, আপনার উচ্চ রক্তচাপ হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • বয়স: বয়স বাড়ার সাথে সাথে উচ্চ রক্তচাপ হওয়ার ঝুঁকিও বাড়ে।
  • অতিরিক্ত ওজন: অতিরিক্ত ওজন বা স্থূলতা উচ্চ রক্তচাপের একটি প্রধান কারণ।
  • অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস: ডায়াবেটিস রোগীদের উচ্চ রক্তচাপ হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • ধূমপান: ধূমপান রক্তচাপ বাড়ায়।
  • অনিয়ন্ত্রিত কোলেস্টেরল: উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি বাড়ায়।
  • নিয়মিত ব্যায়াম না করা: নিয়মিত ব্যায়াম না করলে উচ্চ রক্তচাপ হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • অত্যধিক লবণ গ্রহণ: অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ রক্তচাপ বাড়ায়।

উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমাতে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি গ্রহণ করা যেতে পারে:

স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখুন।

স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখা উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমাতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপগুলির মধ্যে একটি। একজন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যকর ওজন হলো BMI (Body Mass Index) 18.5 থেকে 24.9 এর মধ্যে। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মহিলার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যকর ওজন হলো BMI 18.5 থেকে 24.9 এর মধ্যে।

আপনার BMI গণনা করতে, আপনার উচ্চতা এবং ওজনের উপর ভিত্তি করে একটি অনলাইন ক্যালকুলেটর ব্যবহার করুন। আপনার BMI 25 এর বেশি হলে, আপনাকে ওজন কমানোর জন্য পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

নিয়মিত ব্যায়াম করুন।

নিয়মিত ব্যায়াম রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। সপ্তাহে অন্তত 150 মিনিট মাঝারি তীব্রতার ব্যায়াম করুন।

মাঝারি তীব্রতার ব্যায়াম হলো এমন ব্যায়াম যা আপনাকে ঘামতে শুরু করে এবং আপনার হৃদস্পন্দন বাড়ায়। উদাহরণস্বরূপ, আপনি জগিং, সাঁতার কাটা, সাইকেল চালানো, বা নাচতে পারেন।

ধূমপান ত্যাগ করুন।

ধূমপান রক্তচাপ বাড়ায়। যদি আপনি ধূমপায়ী হন, তাহলে ধূমপান ত্যাগ করার চেষ্টা করুন।

ধূমপান ত্যাগ করার জন্য অনেকগুলি সহায়ক সংস্থান রয়েছে। আপনি আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলতে পারেন, বা একটি ধূমপান ত্যাগ করার সমর্থনমূলক গ্রুপে যোগ দিতে পারেন।

স্বাস্থ্যকর খাবার খান।

স্বাস্থ্যকর খাবার রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। আপনার ডায়েটে প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি, ফলমূল, এবং কম চর্বিযুক্ত প্রোটিন থাকা উচিত। আপনি পূর্ণ শস্য, বাদাম, এবং বীজও খেতে পারেন।

আপনার ডায়েট থেকে প্রক্রিয়াজাত খাবার, ফাস্ট ফুড, এবং অতিরিক্ত চিনিযুক্ত পানীয় বাদ দিন।

পর্যাপ্ত পরিমাণে জল পান করুন।

পর্যাপ্ত পরিমাণে জল পান করা রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন কমপক্ষে ৮ গ্লাস জল পান করুন।

নিয়মিত রক্তচাপ পরীক্ষা করুন।

নিয়মিত রক্তচাপ পরীক্ষা করা উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি সনাক্ত করতে এবং নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

আপনার বয়স 20 বা তার বেশি হলে, প্রতি দুই বছর অন্তর আপনার রক্তচাপ পরীক্ষা করা উচিত। যদি আপনার উচ্চ রক্তচাপ থাকে, তাহলে আপনার ডাক্তার আপনাকে আরও ঘন ঘন পরীক্ষা করার পরামর্শ দিতে পারেন।

উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমাতে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি গ্রহণ করা যেতে পারে:

  • স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখুন।
  • নিয়মিত ব্যায়াম করুন।
  • ধূমপান ত্যাগ করুন।
  • লবণ গ্রহণ কমিয়ে আনুন।
  • নিয়মিত শাকসবজি এবং ফলমূল খান।
  • কম চর্বিযুক্ত দুগ্ধজাত পণ্য খান।
  • অল্প পরিমাণে স্যাচুরেটেড এবং ট্রান্স ফ্যাট খান।
  • নিয়মিত মদ্যপান এড়িয়ে চলুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *